ঋণ পেলেন শর্মী রায়

মিরপুরের পশ্চিম শেওড়াপাড়ায় বসবাসরত শর্মী রায় একজন মস্তিষ্ক পক্ষাঘাত (সেরিব্রাল পালসি) প্রতিবন্ধী নারী।। তিনি একটি প্রাইভেট কোম্পানীতে গ্রাফিক্স ডিজাইনার হিসাবে কর্মরত। ২০১৫ সাল থেকে চাকরির পাশাপাশি ব্যবসা শুরু করেন। বর্তমানে তিনি ভারত থেকে বিভিন্ন পন্য যেমন – থ্রি-পিস, কসমেটিকস, অর্নামেন্টস, লেডিস ব্যাগ ইত্যাদি স্বল্পমূল্যে ক্রয় করে বিভিন্ন শো রুমগুলোতে অধিক মূল্যে বিক্রয়ের মাধ্যমে ব্যবসা করার উদ্দেশ্যে ঋণের জন্য আবেদন করেন । তার আবেদনের প্রেক্ষিতে বি-স্ক্যান থেকে ১৫ অক্টোবর, ২০১৬ তাকে ২০০০০ টাকা ১০ মাসের জন্য প্রদান করা হয়।

সীমার কাপড়ের ব্যবসায় ঋণ প্রদান

সীমার কাপড়ের ব্যবসায় ঋণ প্রদান

রেবেকা মুন্সী সীমা একজন দৃষ্টি প্রতিবন্ধী নারী এবং কাপড়ের ব্যবসায়ী। ঈদকে সামনে রেখে দোকানে নতুন কাপড় তোলার

ব্যাটারী চালিত রিকশার জন্য ঋণ পেলেন সাইদুল

ব্যাটারী চালিত রিকশার জন্য ঋণ পেলেন সাইদুল

বি-স্ক্যান এর ক্ষুদ্র ঋণ প্রকল্পের আওতায় এবার ঋণ দেয়া হলো সাইদুল ইসলাম রনিকে। তিনি ব্যাটারি চালিত পুরানো একটি রিকশা কেনার জন্য আবেদন করেছিলেন।

এ এম রিয়াদ হোসেন

এ এম রিয়াদ হোসেন

সাভার ভাটপাড়া নিবাসী মস্তিষ্ক পক্ষাঘাত প্রতিবন্ধী ব্যক্তি এ এম রিয়াদ হোসেনকে তার মাশরুম ব্যবসা সম্প্রসারণের লক্ষ্যে ৪ জুন ২০১১ সুদমুক্ত ঋণ প্রদান করা হয়।

/** * The template for displaying the footer. * * Contains the closing of the #content div and all content after * * @package charity * @since v.1.0 */ ?>