প্রথমবারের মত হুইলচেয়ার ব্যবহারকারী ব্যক্তিদের নিয়ে র‍্যালি ও সমাবেশ

বি-স্ক্যান এর আয়োজনে বাংলাদেশে প্রথমবারের মত হুইলচেয়ার ব্যবহারকারী হাজার হাজার মানুষের একাংশকে নিয়ে ‘ভেঙ্গে যাক সকল  বাধা, তৈরি হোক চলাচলের সমতা’ স্লোগানকে সামনে রেখে ২ মার্চ, ২০১২ বেলা ৩:৩০টায় রাজুভাস্কর্যের সামনে থেকে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার পর্যন্ত র‌্যালী শেষে হুইলচেয়ার ব্যবহারকারী ব্যক্তিদের সমস্যা ও সম্ভাবনা তুলে ধরে এক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সহায়ক যাতায়াত ব্যবস্থা এবং সর্বজনীন প্রবেশগম্যতার অভাবে স্বাভাবিক জীবন থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে চারদেয়ালের আঁধারে যে মানুষগুলো হুইলচেয়ারে বন্দী হয়ে মানবেতর জীবনযাপন করছেন সেই মানুষগুলোর অস্তিত্ব সবার সামনে তুলে ধরার লক্ষ্যে এই র‌্যালি ও সমাবেশ। ব্যানার, ফেস্টুন এবং প্ল্যাকার্ডসহ বর্ণাঢ্য র‌্যালিটি ছিল স্লোগান মুখর, যা পথচারিদের নজর কাড়ে। বেশকিছু সংগঠনও একাত্নতা প্রকাশ করে বি-স্ক্যান এর এই র‌্যালিতে অংশ নেয়,  তাদের সকলের হাতে ছিল তাদের সংগঠনের ব্যানার।  সংগঠনগুলো হলো – ব্লগারস ফোরাম, রোটারি ক্লাব অব ঢাকা সেন্ট্রাল,  অনলাইন প্ল্যাটফর্ম সরব ডট কম, ওয়াটারএইড এবং মুক্ত আসর। এছাড়াও বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ র‌্যালিতে অংশ নেয়।

র‌্যালি শেষে সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাননীয় যোগাযোগ মন্ত্রী জনাব ওবায়দুল কাদের, এমপি, বিশেষ অতিথি হিসেবে জনপ্রিয় লেখক এবং অধ্যাপক  ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল এবং পরিচালক, লেবরেটরী সার্ভিসেস – বারডেম এবং বি-স্ক্যান প্রধান উপদেষ্টা অধ্যাপক জনাব ডা. শুভাগত চৌধুরী।  সভাপতিত্ব করেন সেন্টার ফর দ্যা রিহ্যাবিলেটেশেন অব দ্যা প্যারালাইজড (সি আর পি) এর প্রতিষ্ঠাতা এবং সমন্বয়ক মিস, ভ্যালেরি এ টেইলার।

সমাবেশ শুরু হয় বি-স্ক্যান সভাপতি সাবরিনা সুলতানা আবেগময় বত্তৃতা দিয়ে, তিনি বলেন – হুইলচেয়ার ব্যবহারকারীদের কথা আলাদাভাবে ভাবতে হবে। তাদের জন্য সহায়ক যাতায়াত ব্যবস্থা, শিক্ষার সুযোগ, সর্বোপরি স্বাভাবিক জীবন যাপনের প্রয়োজনীয় সকল ব্যবস্থা শুধুমাত্র কাগজে কলমে সীমাবদ্ধ না রেখে বাস্তবে পরিণত করতে হবে।

প্রধান অতিথি মাননীয় যোগাযোগ মন্ত্রী  জনাব ওবায়দুল কাদের এমপি তাঁর বক্তব্যে বলেন – বাংলাদেশের বর্তমান রাস্তা ঘাট নিজেরাই করুণ অবস্থার শিকার। সুতরাং রাস্তাঘাটগুলো যোগাযোগের উপযোগী করে গড়ে তুলতে হবে এবং পাশাপাশি হুইলচেয়ার ব্যবহারকারীদের কথাও মাথায় রাখতে হবে। তাই হুইলচেয়ার ব্যবহারকারীদের উপযোগী যোগাযোগ ব্যবস্থা গড়ে তোলা আমাদের নৈতিক দায়িত্ব। আমাদের বর্তমান সরকার প্রতিবন্ধী বান্ধব সরকার, তাই আমাদের চেষ্টা সবসময় প্রতিবন্ধী মানুষের দাবী দাওয়ার পক্ষে। আজকের র‌্যালি ও সমাবেশ থেকে যেসব দাবী দাওয়া তুলে ধরা হয়েছে আমি আমার মন্ত্রাণালয়ের পক্ষ থেকে যথাসাধ্য চেষ্টা করবো।

একীভূত সমাজ গড়ার অঙ্গীকারে ওপেন কনসার্ট

একীভূত সমাজ গড়ার অঙ্গীকারে ওপেন কনসার্ট

প্রতিবন্ধী মানুষের কন্ঠস্বর হিসেবে ২০১২ সালের ডিসেম্বর থেকে বি-স্ক্যান কর্তৃক প্রকাশিত হচ্ছে ত্রৈমাসিক পত্রিকা অপরাজেয়। প্রতিবন্ধী মানুষের সমন্বয়ে প্রতিবন্ধী ব্যক্তি দ্বারা পরিচালিত এই পত্রিকাটির ২য় বর্ষপূর্তি উপলক্ষ্যে ‘চলুন, একীভূত সমাজ গড়ি’ এই

প্রবেশগম্যতা নিরীক্ষা ফলাফল বিষয়ক সাংবাদিক সম্মেলন

প্রবেশগম্যতা নিরীক্ষা ফলাফল বিষয়ক সাংবাদিক সম্মেলন

চট্টগ্রাম এবং ঢাকার সরকারি গুরুত্বপূর্ণ গণস্থাপনাগুলোতে যথাক্রমে ১৬, ১৮ ও ১৯ জুন’১৪ চট্টগ্রামে এবং ২৩ – ২৫ জুন’১৪ প্রতিবন্ধী মানুষের সাথে প্রবেশগম্যতা সম্পর্কিত বিষয়ক অভিজ্ঞ ব্যক্তি, বুয়েট ও চুয়েটের প্রকৌশলী, ইশারা ভাষার দোভাষী ও স্বেচ্ছাসেবীদের একটি দল

অপরাজেয় ত্রৈমাসিক পত্রিকার ১ম বর্ষপূর্তি উদযাপন

অপরাজেয় ত্রৈমাসিক পত্রিকার ১ম বর্ষপূর্তি উদযাপন

চট্টগ্রাম সমিতি – ঢাকা মিলনায়তনে ৬ ডিসেম্বর, ২০১৩, শুক্রবার বাংলাদেশ সোসাইটি ফর দ্যা চেঞ্জ এন্ড অ্যাডভোকেসি নেক্সাস (বি-স্ক্যান) কর্তৃক প্রকাশিত প্রতিবন্ধী মানুষের অধিকার আদায়ের একমাত্র মুখপত্র হিসেবে নিজেদের তুলে ধরতে এই পত্রিকায় প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা ঘরে

/** * The template for displaying the footer. * * Contains the closing of the #content div and all content after * * @package charity * @since v.1.0 */ ?>