ফুটপাতে টেকটাইল টাইলস বসানোয় ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনকে সহযোগিতা

জনগুরুত্বপূর্ণ ভবন এবং গণপরিসরে প্রতিবন্ধী মানুষের প্রবেশগম্যতা বিষয়ে নিরীক্ষা কার্যক্রমের সুপারিশ ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনকে প্রদানের কারণে তাদের সাথে বি-স্ক্যান এর পূর্ব পরিচয়ের সূত্র ধরে, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে ফুটপাতে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মানুষের জন্য টেকটাইল পরামর্শ নেয়ার জন্য সিটি কর্পোরেশনের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী মো. আসাদুজ্জামান সাহেব নিজ উদ্যোগে আমাদেরকে আমন্ত্রণ জানান।

এ প্রেক্ষিতে বি-স্ক্যান এর তিন সদস্যের এক প্রতিনিধি দল ১৯ জানুয়ারি ২০১৭ প্রতিবন্ধী ব্যক্তিবান্ধব রাস্তা বিশেষত দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ব্যক্তিবান্ধব ফুটপাত নিশ্চিত করতে টেকটাইল টাইলস স্থাপনের বিষয়ে দিক নির্দেশনা প্রদান এবং সেই অনুসারে টাইলসের নকশা এবং বিল্ডিং কোড অনুযায়ি টাইলস তৈরির তথ্য প্রদান করে। এ সময় প্রধান প্রকৌশলীর সাথেও সাক্ষাতের ব্যবস্থা করা হয় এবং তাকে বিদেশের কিছু রাস্তার ছবি ও ভিডিও প্রদর্শনের মাধ্যমে টেকটাইল সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণা দেয়া হয়। পরামর্শ দেয়ার প্রাক্কালে বি-স্ক্যান অনুধাবন করতে পারে  যে, দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মানুষের জন্য ব্যবহৃত দুই ধরণের টাইলস সতর্কীকরণ (ওয়ার্নিং) এবং নির্দেশক (ডাইরেকশনাল) টাইলস ব্যবহৃত হলেও বাংলাদেশে নির্দেশক (ডাইরেকশনাল) টাইলসের সহজ প্রাপ্যতা নেই।

আরও ছবি –

পরবর্তীতে সিটি কর্পোরেশেন বি-স্ক্যান এর পরামর্শক্রমে টাইলস বিক্রেতা কোম্পানীর মাধ্যমে অর্ডার দিয়ে এগুলো তৈরি করিয়ে নেন, যা এখন রাস্তায় দেখা যাচ্ছে ।  গুলিস্তানের জিরো পয়েন্টের ফুটপাতে এই টাইলস স্থাপনের পাইলট প্রকল্প শুরু হয় ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ । বি-স্ক্যান এর পর্যবেক্ষন ও পরামর্শে এখানকার টাইলসে কিছু পরিবর্তন আনা হয় দৃষ্টি প্রতিবন্ধী মানুষের চলাচলকে আরও সহজতর করতে।

 

মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরে প্রবেশগম্য টয়লেট নির্মাণে কারিগরি সহযোগিতা

মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরে প্রবেশগম্য টয়লেট নির্মাণে কারিগরি সহযোগিতা

বি-স্ক্যান এর পক্ষ থেকে মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরে ২৮ জুলাই, ২০১৭ একটি প্রবেশগম্য টয়লেট তৈরির জন্য চিঠি দেয়া হয়। দীর্ঘ প্রক্রিয়ার পর ৭ মার্চ, ২০১৭ অধিদপ্তরের তৎকালীন মহা পরিচালক জনাব সাহিন আহমেদ

সিদ্ধেশ্বরী বালক উচ্চ বিদ্যালয়ে ম্যানুয়াল হুইলচেয়ার লিফট স্থাপন

সিদ্ধেশ্বরী বালক উচ্চ বিদ্যালয়ে ম্যানুয়াল হুইলচেয়ার লিফট স্থাপন

সিদ্ধেশ্বরী বালক উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে অধ্যায়ণরত হুইলচেয়ার ব্যবহারকারী মস্তিষ্ক পক্ষাঘাত প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী কে এম সিয়াম ফারজিন অনয় ষষ্ঠ শ্রেণিতে উত্তীর্ণ হওয়ার পরে সে বছর তার শ্রেণীকক্ষ নিচতলা থেকে দোতলায় পরিবর্তিত

অবশেষে জাতীয় জাদুঘরে প্রবেশগম্যতা নিশ্চিত হলো

অবশেষে জাতীয় জাদুঘরে প্রবেশগম্যতা নিশ্চিত হলো

বি-স্ক্যান এর দীর্ঘ প্রায় আড়াই বছরের প্রচেষ্টায় জাতীয় জাদুঘরে সর্বজনীন প্রবেশগম্যতা নিশ্চিত হয়। অক্টোবর ২০১২ জাতীয় জাদুঘরে হুইলচেয়ার প্রবেশগম্য র‌্যাম্প ও প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের জন্য আলাদা টয়লেট নির্মাণ কাজ শুরু